গৌরচন্দ্রিকা

Please select topic

গৌরচন্দ্রিকা

এখানে পত্রস্থ গান ও কবিতা জীবনকে আরও আঁকড়ে ধরার জন্য। আমরা নাচ্ছি-খাচ্ছি, চার-ছয় মারছি, সুর-বেসুর, সবই চলছে, তো গান হবে না কেন--- নিজেকে নিজের মধ্যে ফিরে পাবার, নিজেকে অন্তত নিজেই ভালোবাসার জন্য? আমাদের জীবন থেকে অনেক কিছু সরে যাচ্ছে, যা থাকলেও ক্ষতি নেই। পেলবতার জায়গায় আবিলতা যেভাবে আমাদের গ্রাস করে নিচ্ছে তাতে 'হিংসে বঙ্গবাণী' 'কাহাতে জন্ম' এবং কি কারনে, তা নির্ণয় কঠিন হওয়া উচিৎ নয়।  যে নিজেকে ভালোবাসার কোনও যুক্তি খুঁজে পায় না, সে তো অন্যকে বাসতে পারবেই না। যুগ যুগ ধরে আমাদের যেভাবে বকা-বাদ্য করা হয়েছে তাতে দুর্বল মন তো জটিল হতেই পারে এবং সেই জটিলতা থেকে বিভিন্ন অস্বাভাবিক আচরণ নেহায়েতই স্বাভাবিক, যার প্রথম প্রকাশ নিজেকে সম্মান করতে ব্যর্থ হওয়া এবং পরবর্তীতে অন্যকে সম্মান করতে সক্ষম না হওয়া। এই আরোপিত-ব্যর্থতার সোপান বেয়ে আমরা ক্রমশ নীচে নামতে থাকি। কেউ যেহেতু আমাদের সম্মান করে না, তাই আমারও আমাদের সম্মান করার সাহস করি না। এমন সাহসও অর্জন করে উঠতে পারি না যে বলে বসবো ঃ My country right or wrong, my mother drunk or sober! বকা-বাদ্যের সম্মিলিত কোরাসে, নিজের কথা আর নিজেকে শোনানো হোল না, নিজেদের কথাও নিজেদের মধ্যে দেয়া-নেয়া হোল না---- না হল শোনা, না হল শোনানো! এভাবে আমাদের থেকে আমাদেরকে কে বিচ্ছিন্ন করলো? আমার থেকে আমাকে সরিয়ে ফেললো? এ কোন্‌ আমি? এ কোন্‌ আমরা? পত্রস্থ গানগুলির ভাব, রূপকল্প, কথা, সুর, গায়কী, যন্ত্রানুসঙ্গ চমৎকার, যা মুগ্ধ করে, অভিভূতও করে। এগুলিতে ভাব আছে, ভাষা, এবং তাদের প্রয়োগও আছে---সবচেয়ে বেশী আছে, জীবনকে খুঁজে নেবার আকুতিতে সমর্থন। আমরা তো আর্তই বটে, তাই সমর্থন দরকার! 

বিভিন্ন বিষয়ের গান রয়েছে এখানেঃ মূলত বাংলায়। একটা কথা বলি! দেখা যাচ্ছে যে অ-বাংলা গানের বিষয়-বৈচিত্র্য, বাংলার বৈচিত্র্যের চেয়ে অনেক বেশী। আপনাদেরও কি সেই ধারনা? পত্রস্থ গানগুলি শোনবার প্রকৃষ্ট সময় যার যার ব্যাক্তিগত ফুরসৎ। সত্যি করে বলতে গেলে, গান শুনতে হয় একা অথবা একাত্বা। "চুপ-চাপ লক্ষ্মীটি, শুনবে এবার গপ্পোটি" এমন একটা ভাব। এখানকার এ্যালবাম সমূহে যে গান রয়েছে তা ঠিক উৎকর্ণ হয়ে শোনার জন্য নয় বরং উন্মন হয়ে বুঝে নেবার। যখন কোনও কাজে থাকবেন, তখন পাশে রাখবেন, ওটা নিজে নিজে চলতে থাকবে-- একটা অণুসঙ্গ, ও নিজে থেকে কোনও মনোযোগ আকর্ষণ করবে না কিন্তু একসময় মনোযোগ পেয়ে যাবে। আচ্ছা, আমরা অনেক কিছুর জন্য যৌথ-পরিকল্পনা করি, যেমন সিনেমা দেখা, বাইরে খাওয়া, বেড়াতে যাওয়া  কিন্তু গান শোনার জন্য কোনও পরিকল্পনা হয় কি? কথা বলার জন্য আমাদের পরিকল্পনা থাকে, শোনার জন্যও কি থাকে? নিজের কথা শোনার জন্যও কি পরিকল্পনা থাকে? ঐ যে গান আছে না? 'কান পেতে রই, ও আমার আপন হৃদয় গহন দ্বারে...' । সেই গহন-দ্বারের অর্গল খোলার জন্য যে একাগ্রতা প্রয়োজন, এখানে পত্রস্থ গানগুলি পাকে-প্রকারে তার প্রারম্ভিকি হতে পারে।  

চর্যাপদ বর্ণিত 'নিতি আবেশী' যেহেতু এখন ভিন্নরূপ নিচ্ছে, তাই চলুন না, ভিন্ন ক্ষুধাও জাগাই এবং মেটাই! এক দেশ দু'বার স্বাধীন করেও মুক্তি যখন আমাদের মিলছে না তখন মনে হয়, গণ্ডগোল শুধু দেশের নয়, আমাদেরও। আমরা বেশ কৃত্রিম না? সবসময় গুটানো, সাবধানী, ভীরু, অনিশ্চিত এবং অবিশ্বাসী! কোথাও মন খুলতে পারি না, এমনকি নিজের কাছেও না। এখানকার গানগুলি তথা সব গানই, মনখোলা সুরেলা কথা-- ভালোই লাগে। তো নিজেদের কথা যখন শোনানোই হচ্ছে না তখন অন্যেরটাই আপাতত, শুনি না হয়! কি আর হবে!      

ইদানীং কম্পিউটার গান শোনায় সহযোগী হয়ে আসছে, যার built-in speaker যথেষ্ট যুতসই নাও হতে পারে। এর সমাধান হিসেবে Bluetooth speaker বেশ ভালো, কারণ এগুলি বে-তার। এগুলি সবজায়গায় পাওয়া যায় এবং হাজার পাঁচেক টাকায়-- এই ঢাকা শহরের Apple store সহ বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া যাচ্ছে। এগুলি একটু দুরে স্থাপন করেও ভালো মানের শব্দ পাওয়া যায়, ইচ্ছা করলে একাধিকও ব্যাবহার করা যায়, প্রায় surround-sound!  তবে আপনার কম্পুটার-এ Bluetooth থাকতে হবে। বাইরের আওয়াজ তো বটেই, ঘরের ভিতর বৈদ্যুতিক-পাখার আওয়াজও একটা উপদ্রব--- ওর পাখা আপাতত আটকে দিয়ে speaker-কে প্রকাশ হতে দিন। 

"Please select topic" থেকে যে কোনও topic ক্লিক করে select করুন, প্রত্যেকটা topic-ই মূলত গানের-সংগ্রহ, শুরুতে এক-আধটু লেখা রয়েছে, ঠিক তার পর scroll করে নীচেই গানের শুরু। প্লে-বাটনটা চালু করে দিলে একের পর এক বেজে চলবে। পত্রস্থ গানগুলি সব এক স্কেলের নয় এবং এক ভলিউমেরও নয়। ফলে প্লে বাটনটা চালিয়ে দিয়ে বসে থাকা সম্ভব হবে না হয়তো, মাঝে সাঝে সমন্বয় করতে হবে, তাই Reomte-control এর ব্যাবস্থা থাকা ভালো।

Internet এর স্পীড একটা বিষয় বটে, download হতে অনেক সময় নিতে পারে! ধৈর্য-ধারণ ছাড়া কোনও উপায় বাৎলানো যাচ্ছে না!

গানগুলির গায়ক, গীতিকার, সুরকার কারো নাম এখানে উল্লেখ নেই, যারা আগ্রহী তারা youtube দেখে নেবেন, প্রায় সবই সেখানে আছে। এখানে পত্রস্থ কোনও গান অথবা কবিতার copyright, muktee.com-এর নেই। 

একই গান একাধিক এ্যালবাম-এও রয়েছে, তা একই গান যদি ভিন্ন ভিন্ন ভাব জাগায় তবে উপায় কি? 

মোবাইল-ফোন এখন সর্বক্ষণের সাথী <muktee.com> লিখে search দিলেই হাতের মুঠোয় এসে যাবে।   

শুভমুক্তি!  

 

সায়ীদুল হক খান

ফুলার রোড, নীলক্ষেত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 

 

Disclaimer: No infringement of copyright for songs/recitals is intended. Entertainment only.